নাচোলে পুকুর খননকালে ৫টি কালো পাথরের মূর্তি উদ্ধার

চাঁপাইনবাবগঞ্জের নাচোল উপজেলায় একটি সরকারি (খাস) পুকুর খননকালে পুরাতাত্বিক মূল্য সম্বলিত ৫টি কালো পাথরের মূর্তি উদ্ধার হয়েছে। এছাড়া ৩টি মূর্তির ভাঙ্গা টুকরোও  উদ্ধার হয়েছে। স্থানীয় ও উপজেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, মঙ্গলবার(২ এপ্রিল) সকাল ১১টার দিকে কসবা ইউনিয়নের বরধাচন্ডিপুর গ্রামের রানীদীঘি নামক স্থানে  বরেন্দ্র বগুমুখী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ(বিএমডিএ) কর্তৃক নিয়োজিত ঠিকাদার কর্তৃক একটি ৫০ শতক আয়তনের পুকুর পূণ:খনণকালে  শ্রমিকরা মূতিগুলো মাটির প্রায় ৪ ফুট গভীরে খুঁজে পেলে প্রশাসনকে খবর দেয়। নাচোল উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) সবুজ হাসান বলেন, মূর্তিগুলো আংশিক ভাঙ্গা অবস্থায় পাওয়া যায়। এগুলি ভিন্ন ভিন্ন হিন্দু দেব-দেবীদের বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে। এর মধ্যে একটি দূর্গা, একটি বিষ্ণু ও  একটি কৃষ্ণ দেবতার বলে নিশ্চিত হওয়া গেছে। মূর্তিগুলোর দৈর্ঘ্য ও প্রস্থ যথাক্রমে ৯ ও ৬, ১৬ ও ৮, ১৯ ও ১৩ এবং দুটি ২২ ও ১২ ইঞ্চি। ভাঙ্গা টুকরোগুলো উদ্ধার মূর্তির বেদী বা খন্ডিতাংশ হতে পারে আবার পৃথক মূর্তিরও অংশ হতে পারে। স্থানীয়রা কেউ কেউ এগুলো কষ্টি পাথরের বললেও বিশেষজ্ঞরাই বিস্তারিত গবেষণা করে এসব সম্পর্কে সার্বিক নিশ্চিত মতামত দিতে পারবেন। এগুলোর ছবি ঢাকা বিশ্বিবদ্যালয়ে পাঠানো হয়েছে মতামতের জন্য। তবে তাৎক্ষনিকভাবে এসব সম্পর্কে কোন মন্তব্য পাওয়া যায় নি। সহকারী কমিশনার আরও বলেন, ওই পুকুরে আর কোন মূর্তি বা পূরাতাত্বিক নিদর্শণ আছে কিনা সে সম্পর্কে খোঁজ রাখতে গ্রাম পুলিশকে পাহারায় নিযুক্ত করা হয়েছে। পুকুর খনন অব্যহত রয়েছে। মূর্তিগুলো ওজন করা হয় নি। তবে এগুলো যথেষ্ট ওজন সম্পন্ন। এগুলো মঙ্গলবার বিকালে জেলা প্রশাসনের ট্রেজারিতে হস্তান্তর করা হয়েছে। জেলা প্রশাসক এগুলোর ব্যাপারে পরবর্তী পদক্ষেপ গ্রহণের জন্য পূরাতাত্বিক অধিদপ্তরকে অবহিত করবেন বলে জানিয়েছেন। এগুলো মহামূল্যবান পুরাকীর্তি নিদর্শণ বলে  প্রাথমিকভাবে সংশ্লিস্ট সকল মহল নিশ্চিত হয়েছেন।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top