দারিদ্র্যমুক্ত দেশ গঠনে আজকের শিক্ষার্থীরাই একদিন দায়িত্ব নেবে-বলেছেন জেলা প্রশাসক

সোমবার :: ২৫.০৩.২০১৯

চাঁপাইনবাবগঞ্জে জেলা পর্যায়ে শ্রেষ্ঠ উচ্চ বিদ্যালয়, মহাবিদ্যালয়, মাদ্রাসা ও কারিগরি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, প্রতিষ্ঠান প্রধান, শ্রেষ্ঠ শ্রেণী শিক্ষক এবং ক্বে¡রাত, হামদ ও নাত, সংগীত, আবৃত্তি, বাংলা রচনা প্রতিযোগিতায় শ্রেষ্ঠ শিক্ষার্থীদের মাঝে সনদপত্র বিতরণ করা হয়েছে। জাতীয় শিক্ষা সপ্তাহ উপলক্ষে গ্রীণ ভিউ উচ্চ বিদ্যালয়ে জেলা শিক্ষা অফিস এসব প্রতিযোগিতার আয়োজন করে। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে জেলা প্রশাসক এ জেড এম নূরুল হক বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সোনার বাংলা গড়ার যে স্বপ্ন দেখেছিলেন, যে স্বপ্ন নিয়ে বীর মুক্তিযোদ্ধারা যুদ্ধ করে জীবন দিয়েছিলেন, তাদের সে স্বপ্নের সবটা এখনো পূরণ হয়নি। আমরা স্বাধীনতা পেয়েছি, কিন্তু অর্থনৈতিক, সামজিক, সাংস্কৃতিক, মাদক ও সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে যুদ্ধ আমাদের চলছেই। আগামীতে এ যুদ্ধ করবে আজকের শিক্ষার্থীরা। তাই শিক্ষার্থীদের মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় সোনার মানুষ হিসেবে গড়ে উঠতে হবে। জেলা শিক্ষা অফিসার আব্দুল লতিফের সভাপতিত্বে আয়োজিত অনুষ্ঠানে জেলা প্রশাসক আরো বলেন, সরকার চায়, মানসম্মত শিক্ষা। আর মানসম্মত শিক্ষার জন্য মানসম্মত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, মানসম্মত শিক্ষক, মানসম্মত শিক্ষার্থী দরকার। অর্থাৎ আমাদের সবাইকেই মানসম্মত হওয়া দরকার। এজন্য পড়াশোনা করতে হবে, পাশাপাশি অন্য বইগুলোও পড়তে হবে, খেলাধুলা করতে হবে, সাংস্কৃতিক চর্চা করতে হবে। সবচেয়ে বড় কথা, মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উদ্বুদ্ধ হতে হবে, সবার মাঝে দেশপ্রেম প্রেম থাকতে হবে। তিনি বলেন, এ দেশকে স্বাধীন করার জন্য যারা জীবন দিয়েছেন, যেসব মুক্তিযোদ্ধা এখনো বেঁচে আছেন তাদের প্রতি সম্মানবোধ থাকতে হবে। যারা এর বিরোধিতা করবে তাদের সঙ্গ বর্জন করবতে হবে। শিক্ষার্থীদের নীতি নৈতিকতা থাকতে হবে, উন্নয়নমনস্ক হতে হবে। ২০৪১ সালের মধ্যে আমাদের এ বাংলাদেশ হবে ইউরোপ-আমেরিকার মতো উন্নত দেশ। অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য দেন নবাবগঞ্জ সরকারি কলেজের উপাধ্যক্ষ প্রফেসর ড. শংকর কুমার কুন্ডু, গ্রীন ভিউ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রোকসানা আহমদসহ অন্যরা।

Check Also

বিভিন্ন ক্ষেত্রে শ্রেষ্ঠ অর্জনকারী আটজনকে সংবর্ধনা

১৫ অক্টোবর ২০২২, শনিবার। জেলায় বিভিন্ন ক্ষেত্রে শ্রেষ্ঠত্ব অর্জনকারী আটজনকে সংবর্ধনা দেওয়া হয়েছে। আমরা ৯৩ …