তাইওয়ানে শক্তিশালী ভূমিকম্পে নিহত ৭, আহত সাত শতাধিক

তাইওয়ানে ৭ দশমিক ৪ মাত্রার শক্তিশালী ভূমিকম্পে এখন পর্যন্ত সাতজনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। আহত হয়েছেন সাত শতাধিক মানুষ। খবর বিবিসির। স্থানীয় সময় বুধবার (৩ এপ্রিল) সকাল ৮ টার দিকে দেশটিতে শক্তিশালী ভূমিকম্প আঘাত হানে। গত ২৫ বছরের মধ্যে সবচেয়ে শক্তিশালী এই ভূমিকম্পে কেঁপে ওঠে পুরো তাইওয়ান। মার্কিন ভূতত্ত্ব গবেষণা সংস্থা ইউএস জিওলজিক্যাল সার্ভের (ইএসজিএস) তথ্য অনুযায়ী, ভূমিকম্পের কেন্দ্রস্থল ছিল তাইওয়ানের হুয়ালেন শহর থেকে ১৮ কিলোমিটার দক্ষিণে এবং উৎপত্তিস্থল ভূপৃষ্ঠ থেকে ৩৪ দশমিক ৮ কিলোমিটার গভীরে। ভূমিকম্পের পর দেশটির উপকূলীয় এলাকায় সুনামির সতর্কতা জারি করা হয়। শক্তিশালী এই ভূমিকম্পের জেরে দক্ষিণ জাপান এবং ফিলিপাইনের কিছু অংশের জন্যও সুনামির সতর্কতা জারি করা হয়েছে। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া ভিডিওতে দেখা গেছে, শক্তিশালী এই ভূমিকম্পে বহু বাড়িঘর ভেঙে পড়েছে। স্কুল ও আবাসিক ভবন থেকে লোকজনকে সরিয়ে নেওয়া হচ্ছে। তাইওয়ানের দমকল বিভাগ জানিয়েছে, এখন পর্যন্ত সাতজনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। সাত শতাধিক মানুষ ভূমিকম্পে আহত হয়েছেন। উদ্ধারকাজ চলছে। ইন্টারনেট মনিটরিং গ্রুপ নেটব্লকসের জানিয়েছে, পুরো তাইয়ানজুড়ে বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন এবং ইন্টারনেট বিভ্রাটের খবর পাওয়া গেছে। তাইওয়ানে ভূতাত্ত্বিক জরিপ কেন্দ্রের পরিচালক উ চিয়েন ফু জানান, ১৯৯৯ সালের ভূমিকম্পে দুই হাজার ৪০০ মানুষ নিহত হওয়ার পর এটিই ছিল সবচেয়ে শক্তিশালী ভূমিকম্প। তিনি আরও জানান, সমগ্র তাইওয়ানজুড়ে এবং সাগরের অন্যান্য দ্বীপে ভূমিকম্প অনুভূত হয়েছে। তাইওয়ানের সেন্ট্রাল ইমার্জেন্সি অপারেশন সেন্টার এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, ভূমিকম্পের পর স্থানীয় সময় দুপুর ৩টা পর্যন্ত ১০১টি আফটারশক রেকর্ড করা হয়েছে।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top