জেলায় ভূমি সেবা সপ্তাহ পালিত

বুধবার :: ১০.০৪.২০১৯।

প্রতিবারের ন্যায় এবারো জেলায় শুরু হয়েছে ভূমি সেবা সপ্তাহ। আজ সকালে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে ভুমি সেবা সপ্তাহ উদ্বোধন করা হয়। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রশাসক এ জেড এম নূরুল হক ও স্থানীয় সরকার শাখার উপ পরিচালক ড. চিত্রলেখা নাজনীন। আজ থেকে শুরু হয়েছে ভূমি সেবা সপ্তাহ। এ উপলক্ষে জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে আলোচনা সভা ও উদ্বোধন করা হয়। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্যে দেন, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক সার্বিক এ কে এম তাজকির-উজ-জামান। ভূমি সেবা সপ্তাহের গুরুত্ব তুলে ধরে স্কাউটদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, স্কাউটিং যারা করছে সেটা কাব স্কাউট হোক, রোভার স্কাউট বা গার্লস স্কাউট হোক তাহলে সবাই ছাত্র। ছাত্র অবস্থায় ভূমির মালিক হবার সুযোগ খুবই কম থাকে। যেহেতু সে উপার্জনে নামেনি বা করছে না। তখন তার মধ্যে ভূমি সম্পর্কে কোন তথ্য জানার অধিকার কম থাকে। আমাদের মাঝে অনেকে আছে উচ্চশিক্ষিত না। কিন্তু আমি যদি ইনফরমেশন জানি, যেমন অনেক মানুষ আছে ভূমি অফিসে গিয়ে কার কাছে যাবে এটা জানেনা। তিনি কি এসিল্যান্ডের কাছে যাবেন, না তার সহকারির কাছে, নাকি পিওনের কাছে, নাকি জেলা অফিসে যাবেন তা জানে না। কিন্তু যারা ছাত্র তারা অনেক কিছুই জানেই যদিও ছাত্র তারা। তারপরেও আমি মনে করি সামাজিক দায়বদ্ধতা থেকে আপনারা এই ভূমি বিষয়ক জায়গাটাকে সহজীকরণ করুন। আমি অনুরোধ করব, এখানে যারা ছাত্র আছেন তারা আগে পরিবারকে তথ্যটা জানাবে বা যার ভূমি কেনার মত সামর্থ্য আছে তাদেরকে জানাবে, বা যারা শিক্ষক আছে তাদেরকে জানাবে। তাহলে আজকের এই ভূমি সেবা সপ্তাহটা সফল হবে। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তেব্যে জেলা প্রশাসক এ জেড এম নুরুল হক সকলের উদ্দেশ্যে ভূমি সংক্রান্ত তথ্য জানার আহবান জানান। সেই সাথে অনুষ্ঠানের উদ্বোধন ঘোষণা করে বলেন, আমি জানি যে, যারা তোমরা এখানে এসেছ যারা স্কাউটের। আমার প্রিয় স্কাউটারা তোমরা অবশ্যই সবার চেয়ে সব দিকে স্মার্ট এটা আমি মনে করি। তাই তোমাদের পক্ষে সব কাজ সম্ভব হবে। আমার দৃঢ় বিশ্বাস, তোমরা যারা এখানে আজ এসেছ, তারা ভূমি সংক্রান্ত তথ্য জানব অপরকেও জানাব চর্চা করব পরীক্ষা করব। এই জিনিসটা যখন তোমরা তোমাদের মধ্যে নিতে পারবে আস্তে আস্তে তোমরা আরো স্মার্ট হয়ে যাবে। তোমরা অবশ্যই লিডার। আমাদের মনে রাখতে হবে আমরা লিডার আমরা দেশের জন্য কাজ করতে চাই সমাজকে পরিবর্তন করতে চাই। দেশকে পরিবর্তন করতে চাই সেক্ষেত্রে আমরা অন্যকে পরামর্শ দিতে পারব। ভূমি সংক্রান্ত তথ্য জানতে কোথায় যাবেন কত টাকা লাগবে এগুলো খুব গুরুত্বপূর্ন। এ বিষয়গুলো যদি নিজে জানি এবং মানুষকে জানাতে চেষ্টা করি তাহলে সফল হবে এইজন্য আমরা এখানে আয়োজন করেছি যেন তোমরা এই বিষয়গুলোর ওপর জানতে পার। তোমরা ভাল করে জানো এই শুভক্ষণে অনুষ্ঠানের শুভ উদ্বোধন ঘোষণা করছি। এসময় তরুণদের উদ্যেশ্যে স্থানীয় সরকার শাখার উপ-পরিচালক ড. চিত্রলেখা নাজনীন বলেন, আমরা ভূমি সপ্তাহ সম্পর্কে জানবো এবং এই জানাটা আমদের জন্য অত্যান্ত জরুরি। প্রত্যেকেই যারা আমরা এই পৃথিবীর বুকে বসবাস করছি তার নামে জায়গা থাকুক বা না থাকুক। সবার জন্যই এই জটিল একটি অবস্থান এবং আমাদের প্রতিটি জায়গায় বিভিন্ন যে জায়গাগুলো আছে সেখানে আমাদের জানা বা যাওয়ার সুযোগ অনেক ক্ষেত্রেই থাকে না। কোনো বিষয় যে বইটি তোমরা পাবে সে বয়ে কিন্তু বিস্তারিত অনেক তথ্য উপাত্ত আছে। স্কাউটের অনেক ছাত্র-ছাত্রী এখানে আছে তারা এই বইটা কতটুকু নিতে পারছে সেটা আমরা ভূমি সেবা সপ্তাহ শেষে ছোট্ট একটি মুল্যায়ন হবে। যাতে বইটা নিয়ে বাড়িতে রেখে দেওয়া না এটার মধ্যে তোমরা ডুববে এবং দেখা যাবে যে আসলে তোমরা স্কাউটিং যারা আমরা করি তারা কতটুকু আন্তরিকতার সাথে দায়িত্ব নিয়ে করি। আশা করছি এই ভূমি সেবা সপ্তাহে তাদের কে যে আজকে এই নতুন করে যে দায়িত্বটা দেওয়া হচ্ছে এটি এ চ্যালেঞ্জ তারা কিভাবে মোকাবেলা করে এবং তোমাদের আজকের যে দায়িত্ব সেটি তোমরা পালন করে আমাদেরকে এই ভূমি সেবা সপ্তাহ শেষে একটি ভালো রেজাল্ট দিবে। এছাড়াও অনুষ্ঠানে আরোও উপস্থিত ছিলেন, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মাশরুবা ফেরদৌস, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট দেবেন্দ্রনাথ উঁরাও, সহকারী কমিশনার আসাদুজ্জামান ও নয়ন কুমার রাজবংশীসহ বিভিন্ন উপজেলার স্কুলের স্কাউটএর সদস্য। জেলায় শ্রেষ্ঠ সহকারী কমিশনার হিসেবে সম্মাননা পান শিবগঞ্জ উপজেলার সহকারী কমিশনার বরমান হোসেন। অনুষ্ঠানে ২০ জন স্কাউটদের সদস্যকে হাতে ১ টি করে ভূমি সংক্রান্ত বই তুলে দেন জেলা প্রশাসক এ জেড এম নুরুল হক। পরে ভূমি সংক্রান্ত বিষয় এর উপর একটি নাটিকা পরিবেশন করা হয়। এছাড়াও যারা নিয়মিত করদাতা, তাদের মধ্য থেকে ৫ জনকে পুরষ্কার দেওয়া হয়।

Check Also

বিভিন্ন ক্ষেত্রে শ্রেষ্ঠ অর্জনকারী আটজনকে সংবর্ধনা

১৫ অক্টোবর ২০২২, শনিবার। জেলায় বিভিন্ন ক্ষেত্রে শ্রেষ্ঠত্ব অর্জনকারী আটজনকে সংবর্ধনা দেওয়া হয়েছে। আমরা ৯৩ …