চাঁপাইনবাবগঞ্জে ব্রি-৫১ জাতের ধান চাষ করে লাভবান হচ্ছে কৃষক

বৃহস্পতিবার :: ১৬.১১.২০১৭
স্বর্ণা ধানের চেয়ে বন্যা ও খরা সহনশীল ব্রি-৫১ জাতের ধানের ফলন প্রতিবিঘায় গড়ে ৪ থেকে ৫ মণ বেশি পাওয়া যাচ্ছে। আজ মাঠদিবসে এক কৃষকের জমিতে চাষ করা স্বর্ণা ও ব্রি-৫১ ধান কাটা-মাড়াই শেষে এমন হিসাব পাওয়া গেছে। স্বর্ণার চেয়ে খরচও কম হয়েছে বলে কৃষকরা জানিয়েছেন। সকালে জেলার সদর উপজেলার গোবরাতলা ইউনিয়নের ঘুঘুডিমা এলাকায় কৃষক আব্দুল হক ও আজিজুর রহমানের জামিতে চাষ করা স্বর্ণা ও ব্রি-৫১ জাতের ধার কেটে মাড়াই করা হয়। তাতে দেখা যায়, স্বর্ণার ফলন হচ্ছে প্রতিবিঘায় ১৬ মণ ১৩কেজি এবং ব্রি-৫১জাতের ধানে প্রতিবিঘায় প্রায় ২০ মণ।
এ উপলক্ষে ওই এলাকায় বন্যা ও খরা সহনশীল জাতের ধান চাষে কৃষক উদ্বুদ্ধকরণ মাঠ দিবস এবং প্রশিক্ষণের আয়োজন করা হয়। গোবরাতলা ইউনিয়ন পরিষদের ৮ নং ওয়ার্ড সদস্য তরিকুল ইসলামের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন, জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক মঞ্জুরুল হুদা। চাঁপাইনবাবগঞ্জ কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের সহযোগিতায় এবং আন্তর্জাতিক ধান গবেষণা ইনস্টিটিউট আয়োজিত অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য দেন, সদর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা ড. জাহাঙ্গীর ফিরোজ, গোমস্তাপুর উপজেলা কৃষি অফিসার মাসুদ হোসেন, আন্তর্জাতিক ধান গবেষণা ইনস্টিটিউটের সিনিয়র স্পেশালিস্ট ড, সাইদুল ইসলাম, সদর উপজেলা পরিসংখ্যান সহকারী আবু বকর, কৃষক আব্দুল হক, ইসরাফিল হক, মিজানুর রহমান আদিল।

Check Also

জেলাশহরে গাড়িতে করে ন্যায্যমূল্যে মুরগি ডিম ও দুধ বিক্রি শুরু

১২ এপ্রিল সোমবার, ২০২১। করোনা পরিস্থিতিতে জনসাধারণের প্রাণিজ পুষ্টি নিশ্চিতকরণে চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদরে ভ্যান ও ট্রাকে …