চাঁপাইনবাবগঞ্জে বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস পালিত

চাঁপাইনবাবগঞ্জের নাচোল, গোমস্তাপুর ও সদরে র‌্যালি ও আলোচনা সভার মধ্যদিয়ে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস পালিত হয়েছে।
বুধবার সকাল ১০টায় নাচোল উপজেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি আবুল হোসেনের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বক্তব্য দেন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আব্দুল কাদের, নাচোল পৌরসভার মেয়র আব্দুর রশিদ খান ঝালুসহ আওয়ামী লীগের অন্য নেতৃবৃন্দ।
আলোচনা সভার আগে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন করেন নেতৃবৃন্দ।
অপরদিকে, নাচোল সরকারি কলেজ মিলনায়তনে শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে সকাল সাড়ে ১০টায় আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। কলেজের অধ্যক্ষ শরিফুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় প্রধান আলোচক ছিলেনÑ রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের প্রভাষক ড. অজিত কুমার দাস। অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেনÑ শিক্ষক পরিষদের সাধারণ সম্পাদক ও ভূগোল বিভাগের প্রভাষক শফিকুল ইসলাম, দর্শন বিভাগের প্রভাষক নাইমুর রহমান। সঞ্চালনা করেন ইংরেজি বিভাগের প্রভাষক আজিজুল হক।
সভাপতির বক্তব্যে অধ্যক্ষ বলেন, বঙ্গবন্ধু পাকিস্তানে হানাদারদের বন্দীদশা থেকে মুক্তি পেয়ে ১৯৭২ সালের এদিন সদ্য স্বাধীন বাংলাদেশের মাটিতে প্রত্যাবর্তন করেন। বঙ্গবন্ধু দীর্ঘ ৯ মাস কারাভোগের পর ৮ জানুয়ারি পাকিস্তানের কারাগার থেকে মুক্তি লাভ করেন। পরে তিনি পাকিস্তান থেকে লন্ডন যান এবং দিল্লি হয়ে ঢাকা ফেরেন।
অপরদিকে গোমস্তাপুর উপজেলায় বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস পালিত হয়েছে। দিবসটি উপলক্ষে রহনপুর পৌর আওয়ামী লীগের আয়োজনে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন, বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে মাল্যদানসহ আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। বিকেলে রহনপুরস্থ উপজেলা আওয়ামী লীগের কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন রহনপুর পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল আজিজ।
বক্তব্য দেনÑ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাবেক সংসদ সদস্য গোলাম মোস্তফা বিশ্বাস, রহনপুর পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক মেয়র গোলাম রাব্বানী বিশ্বাস, রহনপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মামুনুর রশীদ, সাবেক ইউপি সদস্য মোকসেদুল হক, নাচোলের আওয়ামী লীগ নেতা মোস্তাফিজুর রহমান বুলেট, কৃষক লীগ নেতা আনোয়ারুল ইসলাম বুলবুল, কৃষক লীগ নেতা শহিদুজ্জামান আনসারি, যুবলীগ নেতা মোমিন বিশ্বাস।
আলোচনা শেষে বঙ্গবন্ধুসহ তার পরিবারবর্গের বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা করা হয়।
অন্যদিকে রহনপুর বেগম কাচারিতে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি আজাহার আলী মন্ডল। বক্তব্য দেনÑ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান হুমায়ূন রেজা, রহনপুর পৌর মেয়র মতিউর রহমান খান, গোমস্তাপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জামাল উদ্দিন মন্ডল, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান হাসানুজ্জামান নূহ, চৌডালা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান গোলাম কিবরিয়া হাবিব।
এদিকে চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগের উদ্যোগে র‌্যালি, সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। সকালে নবাবগঞ্জ সরকারি কলেজ চত্বর থেকে র‌্যালিটি বের হয়ে বিভিন্ন সড়ক ঘুরে জেলা শহরের আব্দুল মান্নান সেন্টু মার্কেটের সামনে শেষ হয়। পরে সেখানে মুক্তমঞ্চে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা।
পরে সেখানে সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ডা. সাইফ জামান আনন্দ। সমাবেশ সঞ্চালনা করেন জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আশিকুজ্জামান আশিক।
ডা. আনন্দ বলেন, ১৯৭১-এ পাকিস্তানিদের শোষণ, বঞ্চনা ও অত্যাচারের বিরুদ্ধে দীর্ঘ ৯ মাস রক্তক্ষয়ী যুদ্ধে জয়ী হয় বাঙালি। বাঙালি জাতিকে মুক্ত করতে গিয়ে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান নেতৃত্ব দেন স্বাধীনতা ও স্বাধিকার আন্দোলনের। আর তাই তাঁকে জীবনের একটা বড় সময় বারবার জেল, জুলুম ও অত্যাচার-নির্যাতন ভোগ করতে হয়। সর্বশেষ পাকিস্তান কারাগার থেকে মুক্ত হয়ে ১৯৭২ সালের ১০ জানুয়ারি স্বাধীন বাংলাদেশের স্থপতি ও বাঙালি জাতির হৃদয়ের স্পন্দন, মহাবিজয়ের মহানায়ক মাটি ও মানুষের মাঝে ফিরে আসেন।

Scroll to Top