১২ই বৈশাখ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | ২৫শে এপ্রিল, ২০১৯ ইং | ২০শে শাবান, ১৪৪০ হিজরী | বৃহস্পতিবার | রাত ৮:৪৮ | গ্রীষ্মকাল
সর্বশেষ সংবাদ
Bangla Font Problem?

শিবগঞ্জের তরতিপুর মহাশ্মশানে মাকরী সপ্তমী মহাপূর্ণ স্নান

মঙ্গলবার :: ১২.০২.২০১৯

প্রতিবছরের মতো এবছরও শিবগঞ্জ পৌর এলাকার তর্তিপুর মহাশ্মশানে মাকরী সপ্তমী মহাপূর্ণ স্নান অনুষ্ঠিত হবে। এ উপলক্ষে আজ সেখানে বসেছে হিন্দু ধর্মাম্মবলীদের মিলন মেলা। কিন্তু আদিকাল হতে চলে আসা এ ¯œান কার্য নিয়ে মহাশ্মশান কমিটি এবার অনেকটাই দুঃশ্চিন্তাগ্রস্ত। এ বছর অনুষ্ঠিতব্য হিন্দুদের র্তীর্থ স্থান জাহ্নমুনির আশ্রমের পাশ দিয়ে প্রবাহিত পাগলা নদী পানির সংকটের কারণে গঙ্গা ¯œান সুষ্ঠুভাবে অনুষ্ঠিত হবে কি না তা নিয়ে কমিটির পাশাপাশি উত্তরবঙ্গের হিন্দুসম্প্রদায়ও হতাশাগ্রস্ত। সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, এ নদীতে গোসল করতে আসা ব্যক্তিরা মগে করে পানি নিয়ে গোসল করছে। অনেকে মাঝ নদীতে গিয়েও ডুব দিতে না পেরে হতাশ হয়ে মগ ডুবিয়ে গোসল করছে। গোসল করতে আসা হিন্দু সম্প্রদায়ের গৌতম মনিগ্রাম জানান, তিনি অনেক কষ্টে পানি তুলে তুলে নদীতে ¯œান করলেন। তার জন্মের পর এমন অবস্থা তিনি এ নদীতে কখনও দেখেন নি। অন্যদিকে শ্রী রাজু সাহা ক্ষোভের সাথে জানান, এমনিতেই ভারতের কারণে নদীতে পানি প্রবাহ নেই, তার উপর নদীর পানি সেচের মাধ্যমে তুলে নিয়ে নদীর বুকে ধান চাষ করার কারণে পানির স্বল্পতা আরও প্রকট হয়েছে। শিবগঞ্জ উপজেলার তরতিপুর মহাশশ্মান কমিটির সাধারণ সম্পাদক শ্রী কমল কুমার ত্রিবেদী জানান, আদিকাল হতে তর্তিপুর মহাশশ্মান এলাকায় উত্তর বঙ্গের বিভিন্ন জেলা হতে লক্ষাধিক হিন্দু ধর্মাবলম্বীরা হিন্দু সম্প্রদায়ের তীর্থ স্থান তরতিপুর শশ্মান এলাকায় জীবনের সমস্ত পাপ মোচনের আশায় ¯œান করতে আসেন। আমাদের ধর্মীয় রীতি অনুযায়ী আজ এ বছরের জন্য আমাদের ¯œানের নির্ধারিত দিন। কিন্তু দু:খের বিষয় এ বছর নদীতে তথা তরতিপুর ঘাটে পানি না থাকায় আমরা মহাসংকটে পড়েছি। এ পানি ছাড়া হিন্দু সম্প্রদায়ের পাপ মোচনের ¯œান করা সম্ভব নয়। আর ¯œান করতে না পারলে লক্ষাধিক হিন্দু ধর্মাবলম্বী নারী পুরুষ দু:খ ভারাক্রান্ত মনে ফিরে যেতে বাধ্য হবেন। এ ব্যাপারে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভুমি) বরমান হোসেন বলেন, বিষয়টি অত্যন্ত জরুরি এবং আমি উর্ধ্বন কর্তৃপক্ষের সাথে আলাপ করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। অন্যদিকে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা চৌধুরী রওশন ইসলাম জানান, সমস্যাটি আমার জানা ছিল না। পাগলা নদীতে পানি সংকটের কারণে হিন্দু ভাইদের মহা¯œান সমস্যার পাশাপাশি, কৃষকদের সেচ ব্যাহত, পরিবেশের ভারসাম্য নষ্টসহ বিভিন্ন সমস্যার সৃষ্টি হতে পারে। তিনি আরও বলেন, জরুরী ভিত্তিতে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে পানি উন্নয়ন বোর্ডের সাথে আলোচনা সাপেক্ষে পানির ব্যবস্থা করে মহা¯œানের ব্যবস্থা করাসহ সব ধরণের সমস্যার সমাধানের জন্য জরুরি ভিত্তিতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

মন্তব্য দেয়া বন্ধ রয়েছে।

একদম উপরে যান