৭ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | ২০শে মে, ২০১৯ ইং | ১৫ই রমযান, ১৪৪০ হিজরী | মঙ্গলবার | রাত ১:০৫ | গ্রীষ্মকাল
সর্বশেষ সংবাদ
Bangla Font Problem?

জেলা পর্যায়ে স্কাউটিং কর্মশালা অনুষ্ঠিত

বুধবার :: ১৭.০৪.২০১৯।

বাংলাদেশ স্কাউটের কমিশনার ও চাঁপাইনবাবগঞ্জ স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ-পরিচালক ড. চিত্রলেখা নাজনীন বলেছেন, এই জেলায় একটু প্রতিকূল অবস্থাতেই স্কাউটিংয়ের কাজ করতে হচ্ছে আমাদের। তাই আমরা আমাদের সর্বোচ্চ চেষ্টা করছি জেলার স্কাউটিংয়ের উন্নতি করার। আমরা আগামীতে অনলাইনে সকল কার্যক্রমের ব্যবস্থা করব। এজন্য সকলের সহযোগিতা আমাদের একান্ত কাম্য। আজ ‘ইউনিট পর্যায়ে নিয়মিত প্যাক ও ট্রুপ মিটিং বাস্তবায়নে প্রতিবন্ধকতা ও এ থেকে উত্তরণের উপায়’ শীর্ষক জেলা পর্যায়ে ওয়ার্কশপে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। ড. চিত্রলেখা বলেন, বাচ্চাদের সামান্য কিছু দিয়ে নিজেদেরই উদ্যোগে যে বিনোদন হয়, অনেক সময় বেশি কিছু দিয়েও তা হয় না। আমরা বাচ্চাদের প্রশংসা করতে পারি। তাহলে তারা খুশি হবে। তারা সামনে এগোনোর চেষ্টা করবে। তিনি বলেন, যাদেরকে নিয়ে আমরা স্কাউটিং করছি সেখানে খেয়াল করে দেখেছি অধিকাংশ বাচ্চারাই দরিদ্র পরিবারের সন্তান। যেহেতু একেবারেই মাঠপর্যায়ে কাজ করি, সেহেতু এই বিষয়গুলো আমি বুঝতে পারি। এক্ষেত্রে যেটা করা যেতে পারে, তাদের সাথে ভালো কম্বিনেশন। তাদের সাথে ভালো ব্যবহার করা। চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলা পরিষদের কনফারেন্স কক্ষে রাজশাহী অঞ্চল বাংলাদেশ স্কাউটসের পরিচালনায় ও চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা স্কাউটের ব্যবস্থাপনায় এ ওয়ার্কশপ অনুষ্ঠিত হয়। ওয়ার্কশপের প্রতিপাদ্য ছিল ‘সুন্দর পৃথিবীর জন্য স্কাউটিং’। কর্মশালায় সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও সদর উপজেলা স্কাউটসের সভাপতি আলমগীর হোসেন সভাপতিত্ব করেন। বিশেষ অতিথি ছিলেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) ও জেলা স্কাউটসের সহ-সভাপতি এ কে এম তাজকির-উজ-জামান। স্বাগত বক্তব্য দেন, এলটি ডেপুটি ওয়ার্কশপ পরিচালক খলিলুর রহমান। অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন জেলা স্কাউটসের সম্পাদক গোলাম রশিদ, রাজশাহী অঞ্চল স্কাউটসের ওয়ার্কশপ পরিচালক ইয়ার মোহাম্মদসহ বিভিন্ন ইউনিট পর্যায়ের স্কুলের শিক্ষকসহ অন্যরা। স্কাউটের প্রার্থনা সংগীত দিয়ে ওয়ার্কশপের শুরু হয়। এরপর চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা স্কাউটস পরিসংখ্যান ও উপস্থাপন এবং মাঠপর্যায়ে প্যাক মিটিং ও ট্রুপ মিটিং বাস্তবায়ন পরিস্থিতি বিশ্লেষণ করা হয়। বিশেষ অতিথির বক্তেব্যে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) ও জেলা স্কাউটসের সহ-সভাপতি এ.কে এ. তাজকির-উজ জামান বিভিন্ন স্কুলের স্কাউট লিডারদের উদ্দেশ্যে বলেন, স্কাউটসে যারা রেগুলার মনিটরিং করেন, তাদের মূল কাজ হলো প্রতিটি ইউনিট কাজ করে কিনা সেটা তদারকি করা। একজন শিক্ষকের সবচেয়ে বড় অর্জন হচ্ছে তার সারাজীবনের ছাত্রছাত্রী। তিনি বলেন, আমার জুনিয়র পদে যারা আছেন তাদেরকে বলি যে, মানুষ বিখ্যাত হয় একটা-দুটো কাজ দিয়ে। অনেক বেশি কাজ করা লাগে না। এটাই হচ্ছে আপনার-আমার আলাদা যোগ্যতা। তিনি আরো বলেন, আমাদের জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে স্কাউটস কর্নার করতে চাই। যেখানে স্কাউটসরা দৃশ্যমান থাকবে। অনেক বেশি নয় কিন্তু একটু একটু প্রচার প্রয়োজন স্কাউটসের। জেলা ও উপজেলা সকল পর্যায়ের লিডারদেরকে সচেষ্ট থাকতে হবে এ ব্যাপারে।

মন্তব্য দেয়া বন্ধ রয়েছে।

একদম উপরে যান