৫ই শ্রাবণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | ২০শে জুলাই, ২০১৯ ইং | ১৭ই জিলক্বদ, ১৪৪০ হিজরী | শনিবার | বিকাল ৪:১৭ | বর্ষাকাল
সর্বশেষ সংবাদ
Bangla Font Problem?

চাঁপাইনবাবগঞ্জ-ঢাকা আন্ত:নগর ট্রেন চালুর দাবি

সোমবার :: ২২.০৪.২০১৯।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ হতে সরাসরি আন্ত:নগর ট্রেনের দাবি আজও পূরণ হয় নি জেলাবাসীর। বাস্তবায়িত হয় নি প্রধানমন্ত্রীর প্রতিশ্রুতির। আন্ত:নগর ট্রেনের মাধ্যমে সরসারি ঢাকা যাতায়াতের দীর্ঘদিনের এ দাবিটি চাঁপাইনবাবগঞ্জের সর্বস্তরের মানুষের হলেও নানামুখী জটিলতায় আজও তা আলোর মুখ দেখেনি। জানা যায়, পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ের সীমান্ত জেলা চাঁপাইনবাবগঞ্জের মানুষের ঢাকা যাতাযাতের দুর্ভোগ লাঘবসহ ব্যবসা বাণিজ্যের প্রসারের জন্য বহু বছর ধরে সরাসরি চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে ঢাকা পর্যন্ত আন্ত:নগর ট্রেন চালুর দাবি করে আসছে জেলার সর্বস্তরের মানুষ। চাঁপাইনবাবগঞ্জের মানুষের প্রাণের দাবি হিসেবে চিহ্নিত করে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলসহ নানান শ্রেণী পেশার মানুষ বহুবার বিক্ষোভ, সমাবেশ, মানববন্ধন কর্মসুচি পালন করেছেন। সাধারণ মানুষের জোরালো এই দাবির মুখে এবং রেলযোগাযোগ ব্যবস্থা জোরদার করতে বাংলাদেশ রেলওয়ে রাজশাহী-রহনপুর বর্ডার এবং আমনুরা-চাঁপাইনবাবগঞ্জ সেকশন সমূহ পুনর্বাসন প্রকল্প নামের একটি নতুন প্রকল্প গ্রহণ করে। ২০০৭ সালে গৃহীত এ প্রকল্পটিতে ব্যয় ধরা হয় প্রায় ১ শ ৫৬ কোটি টাকা। প্রকল্পের আওতায় রাজশাহী থেকে রহনপুর এবং আমনুরা থেকে চাঁপাইনবাবগঞ্জ পর্যন্ত ৭ কিলোমিটার লুপ লাইনসহ মোট ৯২ কিলোমিটার রেলপথ সংস্কার কাজ করা হয়। সাধারণ মানুষের দীর্ঘ আন্দোলন ও জনপ্রতিনিধিদের তদবিরে রেলপথ সংস্কার ও লিংকিং কাজ করা হয়। কিন্তু চাঁপাইনবাবগঞ্জ-ঢাকা সরাসরি আন্ত:নগর ট্রেন চলাচলে বাধা হয়ে দাঁড়ায় আমনুরা জংশন। সেখানেও বাইপাস রেলপথ নির্মাণ করা হয়। এর ফলে সরাসরি ট্রেন চলাচলে সব বাধা দূর হয় এবং তৎকালীন রেলমন্ত্রী মুজিবুল হক আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন আমনুরা বাইপাস। কিন্তু ট্রেনের স্বল্পতা আর চাঁপাইনবাবগঞ্জে ওয়াশপিট না থাকার অজুহাতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতিশ্রæতির আজও বাস্তবায়ন হয় নি। এর আগে ২০১১ সালের ২৩ এপ্রিল প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা চাঁপাইনবাবগঞ্জ সরকারি কলেজ মাঠের এক বিশাল জনসভায় সরাসরি আন্তঃনগর ট্রেন চালুর প্রতিশ্রæতি প্রদান করেন। প্রধানমন্ত্রীর প্রতিশ্রæতির পর আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করা হয় ‘আনত্মঃনগর’ স্যাটল ট্রেনের। তৎকালীন রেল মন্ত্রী সুরঞ্জিত সেন গুপ্ত উদ্বোধন করেন এ শ্যাটল ট্রেনের। প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণার ৮ বছর পেরিয়ে গেছে। কিন্তু সরাসরি আন্ত:নগর ট্রেন চালু না হওয়ায় জেলাবাসী আরামদায়ক ভ্রমণ থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। যোগাযোগ করা হলে পশ্চিম রেলওয়ের জেনারেল ম্যানেজার খোন্দকার শহিদুল ইসলাম বলেন-চাঁপাইনবাবগঞ্জে ওয়াশপিট নেই। এ ছাড়াও অন্যান্য সমস্যা রয়েছে। তবে সব কথার শেষ কথা প্রধানমন্ত্রী বা রেলওয়ে মন্ত্রী চাঁপাইনবাবগঞ্জ-ঢাকা সরাসরি আন্ত:নগর ট্রেনের ঘোষণা দিলে এসব কাজ দ্রæতই করা হবে। তিনি জানান, আগামী ২৫ এপ্রিল রাজশাহীতে বিরতিহীন ট্রেন উদ্বোধন করবেন রেলমন্ত্রী অ্যাডভোকেট নুরুল ইসলাম সুজন।

মন্তব্য দেয়া বন্ধ রয়েছে।

একদম উপরে যান